ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নিশ্চিতে ব্যবহার করতে পারেন টর ব্রাউজার

প্রাইভেসি বা ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নিশ্চিত করতে ব্যবহার করতে পারেন টর ব্রাউজার। টর ব্রাউজার ব্যবহার করলে প্রাইভেসি বিষয়ে নিশ্চিন্ত থাকা যায় এবং ডিজিটাল কোনো ছাপ থাকে না অনলাইনে। এছাড়াও অনেক সময় বিভিন্ন ওয়েব সাইট যেমন ফেসবুক, ইউটিউব ইত্যাদি অফিসে বা নির্দিষ্ট স্থানে ব্লক করা থাকে আর সেখানে এসব ব্যবহার করতেও টর ব্রউজার ব্যবহার করতে পারেন।

protect-your-privacy-online-with-tor-browser-techfaqbd


টর ব্রাউজারে নাম-পরিচয় গোপন করে ওয়েব ব্রাউজিং করা যায়। এ পদ্ধতিতে সরাসরি যোগাযোগের পরিবর্তে একাধিক এনক্রিপশন ভিত্তিক ধাপ পেরিয়ে যোগাযোগ করা হয় বলে ব্যবহারকারীর সত্যিকার পরিচয় গোপন থেকে যায়।

টর ব্রাউজারের কিছু ভাল দিক:

* সম্পূর্ণ অজ্ঞাত পরিচয়ে ব্রাউজিং করা যায়।

* ব্লক করা যে কোন ওয়েব সাইট ব্রাউজ করা যায়।

* উইন্ডোজ, ম্যাক এবং লিনাক্স তিন সংস্করণের জন্যই রয়েছে।

* ইন্সটল করার কোন ঝামেলা নেই।

* সম্পূর্ণ ফ্রি সফটওয়্যার।

* ইংরেজি ছাড়াও আরো অনেক ভাষা সাপোর্ট করে।

টর ব্রাউজারের কিছু খারাপ দিক:

* আইপি হাইডের কারণে স্পীড কিছুটা কমে যায়।

* ফুল স্ক্রীনে এই ব্রাউজার ব্যবহার করা যায় না মানে ফুল স্ক্রীনে এই ব্রাউজার ব্যবহার করলে পরিচয় আর অজ্ঞাত থাকে না।

ডাউনলোড করবেন যেভাবে:

অনেক সাইট থেকে এই টর ব্রাউজারকে ডাউনলোড করে ইন্সটল করতে পারেন, তবে রিকোমেন্ড থাকবে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করতে। এই সাইটে গিয়ে আপনার ইচ্ছা মতো ভাষার একটি প্যাকেজ ডাউনলোড করে নিন। সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করার পরে অবশ্যই সেটিকে ইন্সটল করতে হবে। ইন্সটল করার সময় আপনার ইন্সটলেশন লোকেশনে একটি ফোল্ডার তৈরি হবে, যেখানে টরের প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো স্টোর হবে সফটওয়্যারটি রান হওয়ার জন্য।

সফটওয়্যারটি ইন্সটল করার সময় কোন সেটিং পরিবর্তন করার দরকার নেই, সফটওয়্যারটির রেকমেন্ডেড সেটিং এ একে ইন্সটল করে ফেলুন।

জেনে রাখা ভালো, আনঅফিশিয়াল সোর্স থেকে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করলে হতে পারে হ্যাকার সেই ইন্সটল ফাইল মডিফাই করে সেখানে কোন ম্যালিসিয়াস কোড ইঞ্জেক্ট করে রেখেছে, যেটা আপনার প্রাইভেসি বা সিকিউরিটি নষ্ট করে ফেলতে পারে।

রান করবেন যেভাবে-

সাধারণ সব সফটওয়্যারের মতো টর আইকনে ডাবল ক্লিক করলেই সফটওয়্যারটি রান হয়ে যাবে। এবার সফটওয়্যারটি প্রথমে রান হয়ে টর নেটওয়ার্কের সাথে কানেক্ট হওয়ার চেষ্টা করবে, আর আপনার সেটিং অনুসারে এটি নেটওয়ার্কের সাথে কানেক্টেড হয়ে যাবে। আপনার ইন্টারনেট স্পিড অনুসারে কানেক্ট হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। টর নেটওয়ার্কের সাথে কানেক্টেড হয়ে যাওয়ার পরেই, ব্রাউজারটি রান হয়ে যাবে।

আরো পড়ুন-

Post a Comment

0 Comments